এবার কি টুইন সিলিন্ডার ইঞ্জিনের নতুন পালসার লঞ্চ করবে বাজাজ?

এবার কি টুইন সিলিন্ডার ইঞ্জিনের নতুন পালসার লঞ্চ করবে বাজাজ?

বাজাজ পালসার- নামটি যুব সম্প্রদায়ের কানে এলেই উন্মাদনার বহিঃপ্রকাশ যেন স্বতঃস্ফূর্তভাবেই প্রকাশ পায়। ভারতের বাজারে টু-হুইলারের গতির ক্ষেত্রে নতুন সংজ্ঞা দিয়েছিল এই নামটি। সময়ের সাথে তালে তাল মিলিয়ে নতুন নতুন অবতারে হাজির হয়েছে পালসার। তবে এবার কি আরও এক নতুন লুক আসতে চলেছে এর? সংস্থার গতিবিধি দেখে এমনটাই অনুমান করা হচ্ছে। সম্প্রতি ‘Twinner’ নামে নতুন ট্রেডমার্কের জন্য আর্জি জানিয়েছে বাজাজ। যা এই জল্পনার আগুনে ঘৃতাহুতি দিয়েছে। মনে করা হচ্ছে যে, Twinner নামটি কোনও টুইন সিলিন্ডার মোটরসাইকেলকে ইঙ্গিত করছে৷ বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের পালসার মডেলকে৷

এদিকে আবার প্রিমিয়াম মিড-ডিসপ্লেসমেন্টের বাইক তৈরীর জন্য ব্রিটিশ মোটরসাইকেল প্রস্তুতকারী ট্রায়াম্ফ (Triumph) এর সাথে হাত মিলিয়েছে বাজাজ অটো (Bajaj Auto)। যার ওপর দীর্ঘ দিন ধরেই কাজ করে চলেছে সংস্থাটি। তাই এও হতে পারে ট্রেডমার্কের জন্য দাখিল করা নামটি দুই সংস্থার যৌথ উদ্যোগে তৈরি আসন্ন মিড-ক্যাপাসিটির প্রিমিয়াম টুইন সিলিন্ডার মোটরবাইকের। ট্রেডমার্ক শংসাপত্র অনুযায়ী টুইনার (Twinner) নামটি মোটরসাইকেল এবং স্কুটারের জন্য আবেদন করা হয়েছে। তাই সংস্থার এই নিয়ে কী পরিকল্পনা রয়েছে তা এখনই নিশ্চিতভাবে কিছু বলা সম্ভব নয়।

এটা বলার অপেক্ষা রাখে না যে, কেটিএম (KTM)-এর সাথে বাজাজের অংশীদারিত্ব এদেশে যথেষ্টই সাফল্য পেয়েছে। এখন তাই ট্রায়াম্ফের সাথেও নিজেদের যৌথ উদ্যোগটি জনপ্রিয় করতে চাইছে বাজাজ। Royal Enfield, Kawasaki-র প্রোডাক্টের সাথে টক্কর দিতে ভারতের বাজারে যৌথভাবে তারা নিয়ে আসবে মিড-সাইজড বাইক।

অবার, বাজাজ-এর এই ট্রেডমার্কের জন্য আবেদন করা দেখে এটিও জোর দিয়ে বলা যায় না যে, এই নামের কোনো মোটরবাইক বাজারে আসবেই। কারণ, এর আগেও Fluor, Fluir ও Neuron নামগুলোর ট্রেডমার্ক ফাইল করেছিল বাজাজ। প্রসঙ্গত, Bajaj-Triumph যৌথভাবে ২০২৩-এর মধ্যেই নতুন বাইকের মডেল নিয়ে আসবে বাজারে, যেগুলি হতে পারে Triumph Bonneville-র মতো নিও-রেট্রো ডিজাইনের।

COMMENTS